লাভ রোডে কান্না

Facebook Twitter Email

একটা প্রিয় পথ আছে আমার

পরীবাগ থেকে আজিজ সুপার মার্কেটের

দক্ষিণে এগুলে এই পথ

জনবহুল কোলাহলপূর্ণ কিন্তুত শহরে

এরকম নির্জন শান্ত ছায়া ঢাকা পথ বিরল

ভাবতেই অবাক লাগে

ভীষণ ভীড় আর হট্টগোল পার হলে

গহীন নির্জনতম পথ

পথটি কবি নির্মলেন্দু গুণের মতো

ধীরে ধীরে প্রিয় হয়ে উঠছিল আমার

তিনি পথটিকে প্রিয়তমার মতো যুগপৎ

তীব্র ভালোবাসা আর অভিমানছোঁয়া ঘৃণা নিয়ে প্রত্যক্ষ করেছেন

নাম দিয়েছেন Love Road

নির্মলেন্দু গুণের দেয়া নামটিই শিরোধার্য

 

শাহবাগে যাওয়ার যত পথই থাকুক

সবসময় বেছে নিই Love Road

গভীর রাত্রি আরো গভীরতম নীরবতা দিয়ে

আমাকে আগলে রাখে অল্প একটু সময়

যুদ্ধে যাওয়ার শেষ মুহূর্তে মা যেমন সন্তানকে

 

এলেন গিন্সবার্গের কাছে যেমন Jessore Road

ওয়াল্ট হুইটম্যানের কাছে – Over Travel Road

আমার কাছেও তেমনি Love Road

এই পথের এক কোনায় আধো আলো আধো অন্ধকারে

শ্রমজীবীদের জন্যে একটা চায়ের স্টল

এখানে দাঁড়িয়ে কখনো ভাঙা বেঞ্চে বসে

আমরা যখন চা খাই

অসার মনে হয় সময়ের ব্যবধান

নদী আকাশ কিংবা অরণ্য দেখার অনুভবের চেয়ে সম্পূর্ণ আলাদা

খড়াব জড়ধফ দর্শন

দিশেহারা জনপদের স্বল্পদৈর্ঘ্য পথ

সারাদেশের প্রতিনিধি

রিকসা সিএনজি আর পাজেরোর হর্ণ

হিংস্র করে তোলে আবহাওয়া

আর প্রতিটি মুহূর্তে প্রতিটি বস্তু থেকে

উৎসারিত মানুষের জীবিকা

জীবন প্রেম দৃষ্টি শ্রুতি একইসূত্রে গাঁথা

নির্মম স্বপ্নভার অবনত করে দেয় বুক

যেমন সূর্যাস্তের সাথে সাথে সকল জাতির পতাকা নীচে নামে দুঃখভারানত

কতবার বিষণ্ণ সর্পিল আলোয় পার হয়েছি Love Road

দেখেছি দূরে হলুদ উজ্জ্বল নিয়নের আলোয় ঝলসে ওঠা শাহবাগ

একদিন হঠাৎ শরতের রাতে বাড়ি ফেরার সময়

লাভ রোডের ঈশান থেকে

বেরিয়ে এলো অন্তর্ভেদী আর্তনাদ

আবহমান বাংলার সন্তানহারা জননীর কান্না

বুক ফাটা আহাজারি

আমার অনুসন্ধানী চোখ খুঁজে পেলো কান্নার উৎস সেই নারীকে

পাশে দাঁড়ানো এক কিশোর বলল

সত্যিই আজ সে হারিয়েছে তার বুকের মানিক

অন্ধকার তার কুৎসিত কাঁদামাটি ছুঁড়লো আমার দিকে

স্বেচ্ছাচারী মূর্খ দাম্ভিক লোভী ধূর্ত কাপুরুষ হিংসুটে অলস বাচাল

ব্যাভিচারী কোনো কিছুরই

কমতি নেই শহরে

কম শুধু ভালোবাসার

 

তারপর থেকে আমার প্রিয় Love Road  আতঙ্কে আবিল

তার কাঁধে পা রাখলেই শুনি সেই সন্তানহারা জননীর বিলাপ

আলোর বৃত্তে ঘূর্ণমান দেখি দক্ষিণের দিকে মুখ থুবড়ে পড়া

আহত লজ্জাবনত Love Road

 

সমৃদ্ধ হচ্ছে এই রাজধানী হোক

ছড়িয়ে পড়–ক তার গৌরব দেশান্তরে

তৈরি হোক সংখ্যাহীন শহীদের স্মৃতি বিজড়িত পথ

মোড়ে মোড়ে তাদের নামফলক

তবু চিরস্থায়ীরূপে আমার আত্মার গভীরে নিমজ্জিত Love Road

ভালোবেসেছি তাকে কান্না আর বিস্মৃতির মাঝেও

আর পথের অন্তিমকে প্রসারিত করে দিয়েছি অনন্তের দিকে

জানি লাভ রোডে কান্না ছাড়া কোনো স্মৃতিচিহ্ন থাকে না

শুধু দীর্ঘশ্বাস ফেলেছি যতটুকু এইখানে

আর শুকনো পাতা পায়ে দলেছি যে কয়টি

তার কোনো পদচিহ্ন নেই এই পথে

Facebook Twitter Email