বেহালা

Facebook Twitter Email

ভ্রম থেকে পৌঁছে যাই অলীক বিভ্রমে- আর স্নানঘর থেকে ছুটে যাই ঘুমঘোর স্যানাটোরিয়ামে- কিছুটা দূরের রেখা পার হয়ে এসে যাই শ্বেতধোঁয়া সরোবরে- জলমগ্ন জ্যোতির মর্মরে- বেজে ওঠে ঠান্ডা হাওয়ায় এক ম্যান্ডোলিন; গ্রিক দেবতার হাড়ের ভেতর বেজে ওঠে দন্তহীন আফ্রোদিতি- চুলখোলা ডাকিনীর ডাক।

 

জানালার ওপারেই দেখি সিমেট্রির শাদা আভা- দুপায়ে খানিক হেঁটে আসতেই ভীষণ ককিয়ে ওঠে মৃত কবিদের সব অসমাপ্ত পান্ডুলিপি- চোয়ালের চামড়ায় ফেনা তুলে এক গোরখোদক গাইতে থাকে রাতচেরা লালাবাই।

 

মিউজিকরুমে শূন্য পড়ে আছে অই বিকল বেহালা- পানশালা থেকে ভেসে আসে ফেনায়িত বিটোফেন- এক ইন্দ্রিয়হীন ভিখিরি হেঁটে যায় বেড়ালের শান্ত আত্মা কাঁধে নিয়ে- মাঝরাত শেষ না হতেই জ্বলে ওঠে ক্যাথেড্রালের কাচের ঝাড়বাতি- আর আদিগন্ত গোঙাতে গোঙাতে বেজে ওঠে এক ছড়ছাড়া বিকল বেহালা!

Facebook Twitter Email